Home / Tech News / Hacking Mastercard Cashout 20 Laks কার্ড হ্যাক করে আবারো ২০ লাখ !

Hacking Mastercard Cashout 20 Laks কার্ড হ্যাক করে আবারো ২০ লাখ !

Clone Hacking Mastercard Bangladesh
Cash outed 20 Laks from Several ATM Booth

ডেবিট ও ক্রেডিট মাস্টারকার্ড ক্লোন করে বাংলাদেশে আবারো একদল হ্যাকারস টাকা চুরির ঘটনা ঘটিয়ে গেলো। দেশের ৫ টি শীর্ষ বানিজ্যিক ব্যাংকের প্রায় ৪৯ গ্রাহকের তথ্য সংগ্রহের ভিত্তিতে তাদের নামে নকল কার্ড তৈরী করে বিভিন্ন এটিএম বুথ থেকে POS মেশিন ব্যবহার করে টাকা বের করে নিয়েছে একটি চক্র। ব্যংকের হিসাবে থাকা গচ্ছিত অর্থ ও ক্রেডিট কার্ডের ২০ লাখ টাকা হারাতে হয়েছে বেসরকারী খাতের ৫ ব্যাংক প্রতিষ্ঠানকে। Tech news about hacking mastercard Bangladesh.

ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায় যে, ডেবিট ও ক্রেডিট উভয় কার্ডকেই জাল করে ব্যবহার করেছে চক্রটি। ক্লোনকৃত কার্ড ব্যবহার করে গত ১০ মার্চ ২০১৮ একাধিক এটিএম বুথ টাকা তুলে নিতে সক্ষম হয় এসকল হ্যাকাররা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের National Payment Switch Bangladesh (NPSB) এর মাধ্যমে আন্ত ব্যাঙ্কে অর্থ লেনদেন করা যায় এমন সব এটিএম বুথ থেকে টাকা সংগ্রহ করেছে প্রতারক চক্রটি।

এসএমএস এ নোটিফিকেশন পাবার মাধ্যমে গ্রাহকেরা বুঝতে পারেন তাদের টাকা কেও তুলে নিয়েছে। গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যাঙ্ক পরে বিষয়টি নিশ্চিত করে।এ ঘটনার নিশ্চিতের পরপরই সাময়িক সময়ের জন্য আন্ত ব্যাংকিং সেবা বন্ধও করে দেয় কোন কোন ব্যাঙ্ক। অন্যন্য ব্যাংকের পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংক ও এনপিএসবি সার্ভিস এক দিনের জন্য বন্ধ রাখা হয়।

কেন্দীয় ব্যাংকের পেমেন্ট সিষ্টেমস বিভাগের এক সুত্র থেকে এনপিএসবি সার্ভিস বন্ধ থাকার কারণ অনসন্ধানে এই ৫ ব্যাংকের ঘটনা বের হয়ে আসে।পরে ব্যাংকগুলির সাথে কথা বলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়। ব্যংকগুলির দাবী তারা ঘটনার বিন্তারিত তথ্য জানতে ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করে দিয়েছেন। গ্রাহকের টাকাও ইতিমধ্যে ফেরত দিয়ে দিয়েছে কেও কেও। তবে ভুক্তভোগী গ্রাহকের সংখা আরো বাড়তে পারে বলে কতৃপক্ষরা আসঙ্কা করেছেন।

হ্যাকিং বিষয়ে এই ব্লগ থেকে আরো পড়ুন Buy Sell Dollar Bangladesh Scam Facts ডলার লেন-দেন প্রতারণা |

সম সাময়িক এই ঘটনার পর আধুনিক ব্যংকে টাকা রাখার ব্যপারে কতটুকু নিরাপত্তা আছে বলে আপনি মনে করেন? নীচের কমেন্ট করে আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত জানাবেন।

 

তথা সুত্রঃ কালের কন্ঠ-শেষের পাতা-19-03-2018|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *